পশ্চিমবঙ্গে জনস্বাস্থ্য আন্দোলনের চেনামুখ ডাঃসিদ্ধার্থ গুপ্ত ও ডাঃপুন্যব্রত গুণ।   বর্তমান সারা পৃথিবী জুড়ে যে কোভিড-১৯ এর মারণ বাসা। তার জেরে লকডাউন এবং করোনার অতিমারি। এই দুই অভিজ্ঞতাসম্পন্ন চিকিৎসক সাধারণ মানুষ কিংবা সমস্ত চিকিৎসকদের সতর্ক থাকতে বলেছেন।  

ডাঃ  গুপ্ত জানান ,তিন ভাবে পরীক্ষা করে নিতে হবে যেমন- ১.ব্যাকটেরিয়া  কিংবা ভাইরাস শরীর থেকে ডিডেকশন করতে হবে। আসলে যে কোনো ইনফেকশন ডিজিজই হলো ভাইরাস। তাই এই পদ্ধতিতে প্রথম পরীক্ষা করতে হবে। 

২.অ্যান্টিজেন যে বিপ্র...

করোনা সারা পৃথিবীজুড়ে আবছায়া আবডালে থেকে সারা পৃথিবী ধ্বংস করে দিচ্ছে। এর প্রভাব প্রতিটি রাজ্য, জেলা, শহর ও গ্রামজুড়ে। 

সচেতনতা গড়ে তুলতে লকডাউনও চলছে সারা বিশ্বজুড়ে। 

আমাদের দেশ ভারতবর্ষ। যে দেশে সব ধর্মের মানুষের বসবাস  । সেই  দেশে সব শ্রেণির মানুষও বসবাস করে। এই দেশের সবচেয়ে  পিছিয়ে পড়া রাজ্য হলো পশ্চিমবঙ্গ। পশ্চিমবঙ্গের জেলাগুলোর মধ্যে পূর্ব মেদিনীপুর জেলায় সবচেয়ে বেশি গরীব মানুষের বসবাস। এই জেলাতে অনগ্রসর শ্রেণির মানুষও  বসবাস করে। এই জেলা জুড়ে বেশিরভাগ গ্রাম। আর গ্রামের সাধারণ মানুষ নানান জ...

লকডাউন চলছে কিন্তু বাঁচতে তো হবে। তাই জেলা জুড়ে গ্রামের ব্যাঙ্ক পরিষেবা খোলা হলেও সরকারি নির্দেশিকা কে শিকেয় তুলে অগাধ জমায়েত। যার ফলে গ্রাম বাংলার শিক্ষিত, অশিক্ষিত মানুষের মধ্যে করোনা সংক্রমণের তীব্র আশঙ্কা। 

পূর্ব মেদিনীপুর জেলা জুড়ে প্রায় একই ছবি ধরা পড়েছে। কোথাও রাস্তা পর্যন্ত চলে এসেছে ব্যাঙ্ক গ্রাহকদের লাইন । তাতে দূরত্ব বিধি নেই। আবার কোথাও সিভিক পুলিশ দিয়ে সরানো হচ্ছে এই লাইন। এই ভাবে হায়রানি যেমন গ্রামের মানুষদের হচ্ছে, তেমনি করোনা আক্রমণের  ভয় ও আতঙ্ক গ্রাস করছে। 

মাস পয়লা   বেতন,...

"যখন  মৃতেরা দূরে চলে  যায় কুয়াশায় হাওয়ার ভিতরে

অস্পষ্ট মুখের চিহ্ন একদিন- দুই দিন- খেলা করে চুপে

তারপর নিভে যায়, একদিন- দুই দিন- আঙিনার ধূপে " (জীবনানন্দ দাশ)

সারাবিশ্বে যখন নোভেল কোভিড-১৯  মারণ ব্যাধি  সংক্রমণ হচ্ছে লক্ষাধিক মানুষ।   , মারা যাচ্ছে হাজার হাজার মানুষ   । এই মারণ ব্যাধির হাত থেকে বাঁচার জন্য সারা পৃথিবী জুড়ে লকডাউন ঘোষিত হয়েছে। ভারতও  তার ব্যাতিক্রম নয়। ভারতের সমস্ত রাজ্যগুলি  এই লকডাউনের আওতায় পড়ে যাওয়ার  ফলে মধ্যবৃত্ত সম্প্রদায়ের মানুষজন এবং  গরীব এবং দারিদ্র্য পরিবারের মানুষ...

"মহামারি" -এই শব্দটার সাথে গোটা বিশ্ব  পরিচিত। কারণ বিভিন্ন সময়ে এই শব্দটি সারা বিশ্বে ত্রাসের সৃষ্টি করেছে। যখনই রোগ নিয়ে এসেছে, তখনই শ্মশান করে দিয়েছে বিভিন্ন জায়গায়। দেশ -কাল - গণ্ডি সমস্ত কিছু  একাকার হয়ে গিয়েছিলো। শুধু বিশ্ব জুড়ে একটাই শব্দ "মৃত্যু"! এর প্রমাণ রেখে গেছে সময় , দেখেছে ভারত সহ গোটা বিশ্ব- কালাজ্বর, কলেরা, প্লেগ মারণ রোগের আক্রমণ। আবার সেই দিন ফিরে এলো ভয়ংকর কোভিড-১৯ মারণ ব্যাধি। ২০২০ সালের গোটা মার্চ মাসজুড়ে মৃত্যু , ভয়, আর আতঙ্কের মানচিত্র। 

      ইতিমধ্যেই বিশ্বের ব...

নিশানা তিন তিনটি দেশ
যারা শুরুতেই নিজেদেরকে জানতে চেয়েছিলো
কেউ নিজের তৈরি গাছের গতিপথ দেখে
কিংবা কেউ  আবার কবরের পাশে
আবার কেউ পতকার রঙ দেখে

তিন তিনটি দেশ
সহসা  গোলা বারুদের গন্ধ
কুয়াশায় ঢাকে আকাশ
খোলা রাস্তায় পাশাপাশি  লাশের পর লাশ
গাছের নীচে, কবরের পাশে, পতাকায়
ভেসে যায় রক্ত

তিন তিনটি দেশ

পরিচয় হারালেও
মাটিতেই পড়ে থাকে

নাগরিকত্ব চিহ্ন।

ক্রমশ  খালপথ ধরে

রক্ত ভেসে যায়

দোষী - নির্দোষীর বখাটে  হিসেব 

ভীড়ের  মাঝে  ভীড় 

আরও  ভীড়  বাড়তে থাকে 

এক,দুই , তিন...আট, নয়... ক্রমশ   বাঁচার লড়াই 

শোষকেরা খুঁজে  পায় 

শোষণের  প্রক্রিয়াকরণ 

আবার রক্ত... ক্রমশ  লাল, নীল , সবুজের  

হাঁটবার পথ শেষ 

সামনে শূন্যতা ...

রক্তের  স্রোতে 

ক্রমশ  এইভাবে... 

(২৮ নভেম্বর হায়দ্রাবাদে  ধর্ষণের শিকার প্রিয়াঙ্কা রেড্ডির   অকাল প্রয়ানে  শ্রদ্ধাঞ্জলি) 

হাল্কা শিশিরের আদরে

সন্ধ্যা নামে। তখনও লাইটপোস্টের নীচে ঘন অন্ধকার

হঠাৎ আলো খেলে 

সদ্য প্রস্ফুটিত একতরুণীর শরীর বেয়ে

পশু চিকিৎসক হয়েও পশুদের চোখে খাদক হয়ে ওঠে

তখনও ভাবেনি তার শরীরে কাঁচা মাংসের গন্ধ লেগে আছে

হাসি, খুশি, প্রাণচ্ছল মেয়েটি 

বাড়ি ফেরার আনন্দে মাতে

মুহূর্তে শরীর ঘিরে   

কারা যেন রক্ত মাংসের স্বাদ নেয়

ভরা জোছনায়  রঙিন ও সুস্বাদু হয়ে ওঠে

নির্জন ঘন জঙ্গলের এক কোণে

বিষাক্ত দাঁত আর নখ...

            

 সন্ধ্যা প্রায় ৭টা। আমি তখন কবিতা যাপন করছি। হঠাৎ আমার মোবাইল ফোনে  একটি অজানা নম্বর ভেসে ওঠে। ধরতে গেলাম মিস্ট কল হয়ে গেলো। আমি গুরুত্ব না দিয়ে আবার নিজের কাজে ব্যস্ত হয়ে পড়লাম। তারপর পরপর দুবার একই নম্বর ভেসে ওঠে। 

বিরক্ত হয়ে পড়লাম। মনোযোগটা ফোনের দিকে পড়তে ভাবলাম আমারই একবার ফোন করা উচিৎ। নিজেদের কেউ হতে পারে। 

ফোন করতেই ও প্রান্ত থেকে একটা মহিলার কণ্ঠস্বর শুনে প্রথমেই চমকে উঠলাম। নিজেকেই ঠিক করে নিয়ে বললাম -কে বলছেন? কোথ থেকে বলছেন? কত নম্বর...

  শীতের তাপ প্রবাহে 

সূর্যাস্তের  ক্লান্তি  আলোয় 

ভালোবার বীজ বোনে

গাছেদের স্নেহ মাখা কথা

সন্ধ্যার  সান্ধ্য বাতাসে ভাসে

বলে যায় পাখিদের  দল 

ভালোবেসে  বাসর সাজায়

সারারাত  ভাবনায় 

তোমার দেওয়া  কথা 

হৃদয়ে  ঘড়ির  কাটার মতো টিকটিক  বাজে

সময় তো ঠিক বলে যাবে

তোমার আমার ভালোবাসা

চিরন্তন  দুটো শরীরে 

মিথ্যে  কথায়  কথায়  

প্রমাণ  পরীক্ষায় 

ভালোবাসা  যায় না বৃথা 

পরস্পরের  হৃদয়  বলে যায় । 

কত মানুষ  হাঁটছে 

চেয়ে দেখছে  সবাই 

কেউ মাথায়  রক্ত নিয়ে

কেউবা হাতে রক্ত নিয়ে

কিংবা কেউ হাসপাতালের  মর্গে 

আমিও হাঁটতে  হাঁটতে হোটেলের  লাইনে  

আমি মশলা  মুড়ি  নিয়ে বসেছি একটু দূরে 

ভেসে আসছে একটা  দুর্গন্ধ 

অবিকল  মানুষের  মতো নোংরা  আবর্জনায়  চিৎ হয়ে শুয়ে 

কতগুলো  কুকুর  ছিঁড়ে ছিঁড়ে  খাচ্ছে 

আমি বিহ্বল চোখে 

আমি এই মৃত্যুর  জন্য  দায়ী 

আমরা  কেউই  এর থেকে  সরে আসতে পারিনা 

যে ছেলেটা  এম.এ পাশ করে  গলির...

Please reload

সাম্প্রতিক পোস্ট
Please reload

Archive
Please reload

A N  O N L I N E  M A G A Z I N E 

Copyright © 2016-2019 Bodh. All rights reserved.

For reprint rights contact: bodhmag@gmail.com

Designed, Developed & Maintained by: Debayan Mukherjee

Contact: +91 98046 04998  |  Mail: questforcreation@gmail.com