আজ প্রধানমন্ত্রী কিছুক্ষণ পর কি বলবেন তাই নিয়ে স্বাভাবিকভাবে কৌতূহলের শেষ নেই।  যতদূর জানা গেছে আলোচনার ভিত্তিতে প্রধানমন্ত্রী ঠিক করছেন দেশের ১৫ টি রাজ্যের ২৫ টি জেলায় যেখানে নতুন করে আর সংক্রমনের কোন খবর নেই সেগুলিকে সবুজ রঙে চিহ্নিত করে স্বাভাবিক জীবন যাত্রা শুরু করবার নির্দেশ দেবেন। একই ভাবে যে সমস্ত জেলায় এখনো সংক্রমণ  অল্প হলেও ছড়াচ্ছে , সেখানেই লকডাউন যেমন  ছিল তেমন ভাবেই চালু রাখা হবে। এই এলাকাকে হলুদ রঙে সতর্কিত এলাকা বলে চিহ্নিত করা হচ্ছে। আর যেখানে ছড়িয়ে পড়েছে দ্রুত এই জায়গা গ...

দেশজুড়ে লকডাউন। নাসাবন্দী অবস্থা হতে চলেছে অর্থনীতির। নোট বাতিলের ধাক্কা সামলাতে  না সামলাতে জিএসটি, একের পর এক ব্যাংক চিটিং ও কেলেঙ্কারি, এসবের যুগপৎ প্রতিক্রিয়ায় ভারতীয় অর্থনীতির বৃদ্ধির হার যখন কমতে কমতে সাড়ে চার শতাংশের আশে পাশে ঘুরছে, তখনই এই করোনা থেকে বাঁচতে দেশজুড়ে  লকডাউন বিশাল ধাক্কা দিয়ে যাবে। কতখানি ধাক্কা সেটা জানতে বুঝতে মাস ছয়েক লাগবে।আশঙ্কা, আনুমানিক ২ শতাংশ বৃদ্ধির হার কমবে!

নোট বাতিলের মতই বড় সমস্যা এই লকডাউন। নোট বাতিল  হলেও সেই সময় অর্থনীততে  নিত্য লেনদেন চলত। ন...

দেশে কমপক্ষে আরো দুই সপ্তাহ লকডাউন বাড়তে চলেছে। ইতিমধ্যে পাঞ্জাব সরকার রাজ্যে ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত বাড়িয়ে দিয়েছে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকের আগেই।সমস্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ১৭ ই জুন পর্যন্ত বন্ধ রাখতে নির্দেশ দিয়েছে উড়িষ্যা সরকার। এই লেখার সময় পর্যন্ত দেশের আক্রান্তের সংখ্যা সাত হাজার ছাড়িয়েছে। মৃতের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ২০৬! রাজ্য সরকারের সঙ্গে বৈঠকের আগেই ঘটনাচক্রে একটি বিবৃতিতে চট জলদি লকডাউন তুলে নিতে নিষেধ করল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। সবমিলিয়ে তাই লকডাউন কমপক্ষে ৩০ এপ্রিল থেকে ১৫ মে র মধ্যে ব...

গত দু'দিনে যেভাবে ভারতে করোনা সংক্রমণ বেড়েছে তাতে এদেশে মহামারী হতে আর সময়ের অপেক্ষা। এমনটাই মনে করছে করোনা রোগের চিকিৎসকরা। বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের মতামত হলো এরকম ই। তাদের মতে, এদেশের স্বাস্থ্য ব্যবস্থা অত্যন্ত দুর্বল। পৃথিবীর সবচাইতে খারাপ ও  পিছিয়ে থাকা স্বাস্থ্যব্যবস্থা যে  দেশগুলির তার অন্যতম এই দেশ। একইসঙ্গে অত্যন্ত ঘনবসতিপূর্ণ দ্বিতীয় জনবহুল দেশ। গোষ্ঠী সংক্রমণ শুরু হলে গণ মৃত্যু ঘটা শুরু হয়ে যাবে এই দেশে। এমন আশঙ্কার সবচাইতে বড় কারণ হল এদেশের লকডাউন কার্যত সংক্রমণ প্রতিরোধে ব্যর্থ হয়ে...

এক অদ্ভুত রাজনৈতিক নাটক অনুষ্ঠিত হলো  কলকাতায়। "সাংবিধানিক দায়িত্ব" পালন করার জন্য প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগতম জানাতে আকাশবাণীর সামনে রাস্তার মোড়ে চালানো হলো সেই স্বাধীনতার গান, "  মরা গাঙে বাঁধ ভেঙে আয় না ছুটে জয় মা বলে" আর তার ঠিক কোনাকুনি ময়দান পেরিয়ে মেয়ো রোডে তৃণমূল ছাত্র পরিষদের প্রতিবাদী সভা থেকে হুংকার উঠছে, মোদি সরকার নিপাত যাক, এন আর সি মানছি না।ক্যা মানছি না।"হাজার হাজার মানুষকে এদিন নাকের জলে চোখের জলে করে ধর্মতলা থেকে প্রিন্সপ ঘাট পর্যন্ত চলাচল বন্ধ করে মোদীর সুচারু চলাচলের অত্যন্...

রাজনীতি যখন ন্যায্যতার প্রশ্ন এড়িয়ে "সেন্স অফ জাস্টিস " হারিয়ে ফেলে গণতন্ত্র তখন পাল্টি তন্ত্রে পর্যবসিত হয়।ডেমোক্রেসি তখন পরিনত হয় হিপোক্রেসি তে।

এদেশে এখন তাই বলা যেতে পারে, ডেমোক্রেসির নামে হিপোক্রেসি চলছে।

সর্বশেষ উদাহরণ মহারাষ্ট্র। সেখানে ভোটাভুটির পর দেখা গেল জনাদেশ ভাগাভাগি হয়ে গেছে আড়াআড়িভাবে। অর্ধেক মানুষ চায়না শাসক দল কে। অর্ধেক মানুষ চায়। ফলে শাসন ক্ষমতায় থাকা নিয়ে বিজেপি পক্ষে সঠিকভাবে সংখ্যাগরিষ্ঠতা প্রমাণ দেওয়া সম্ভব হচ্ছে না।এরকম পরিস্থিতিতে তারা বলেই দিল রাজ্যপালকে যে...

এনআরসি নিয়ে একটি স্পষ্ট সিদ্ধান্ত নেওয়া অতি অবিলম্বে জরুরি হয়ে পড়েছে। দীর্ঘ কয়েক দশক ধরে একটি বিতর্ক কে কেন্দ্র করে যে এনআরসি প্রক্রিয়া সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে চালু হয়েছিল তার তার চূড়ান্ত ঘোষণা হয়েছে। কিন্তু  পরিস্থিতি আরো জটিল হয়েছে। ফলে এনআরসির খসড়া তালিকা প্রকাশের পর আসামের যে সমস্ত রাজনৈতিক দলগুলি চূড়ান্ত সিদ্ধান্তের পক্ষে কথা বলছিল সেই সমস্ত দল চূড়ান্ত রায় ঘোষণার পরে রাতারাতি তাদের অবস্থান পরিবর্তন করতে বাধ্য হয়েছে। কেন ?

আজকে আসু বা অসমে বিজেপির রাজ্য শাখা এর বিরোধিতা করছে।...

Please reload

সাম্প্রতিক পোস্ট
Please reload

Archive
Please reload

A N  O N L I N E  M A G A Z I N E 

Copyright © 2016-2019 Bodh. All rights reserved.

For reprint rights contact: bodhmag@gmail.com

Designed, Developed & Maintained by: Debayan Mukherjee

Contact: +91 98046 04998  |  Mail: questforcreation@gmail.com